image

আন্দরকিল্লা মসজিদ চত্বরে মুসল্লিদের ওপর পুলিশের লাঠিচার্জ

image

কুমিল্লায় পূজামণ্ডপে কোরআন অবমাননাকারিদের শাস্তির দাবিতে চট্টগ্রাম আন্দরকিল্লা জামে মসজিদ চত্বরে সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে মুসল্লিরা ।

আজ (১৫ অক্টোবর) শুক্রবার, জুমার নামাজ আদায় শেষে মসজিদের গেটে এ বিক্ষোভ করেন তারা। এতে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে অতিরিক্ত পুলিশের পাশাপাশি সোয়াতও মোতায়েন করা হয়েছে। মুসল্লিদের সাথে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সাথে সংঘর্ষ চলছে।


এই পূজামণ্ডপের ঘটনাকে কেন্দ্র করে দেশের বিভিন্ন স্থানে হামলা, ভাংচুর ও প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে। এমন অবস্থায় দেশজুড়ে কঠোর অবস্থান নিয়েছে সরকার। গতকাল বৃহস্পতিবার থেকে দেশের ২২টি জেলায় বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে সতর্ক অবস্থানে রয়েছে পুলিশ ও র‌্যাব।

কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ নেজাম উদ্দিন বলেন, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীরা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে সব ধরনের প্রস্তুতি নিয়েছেন। কেউ যাতে কোনো ধরনের উস্কানি দিয়ে পরিবেশ ঘোলাটে করতে না পারে, সে জন্য গোয়েন্দা নজরদারি বাড়ানোর পাশাপাশি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সাইবার টহলও চলছে।

এদিকে কুমিল্লায় মন্দিরের ঘটনাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ভাংচুরের ঘটনায় প্রধান সন্দেহভাজন মো. ফয়েজ নামে এক ব্যক্তিসহ সন্দেহভাজন অন্তত ১০০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পুলিশ বাদী হয়ে ধর্মীয় অবমাননা, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন এবং ভাংচুরের ঘটনায় পৃথক ৪টি মামলা করেছে। ঘটনা তদন্তে কুমিল্লা জেলা প্রশাসন ও পুলিশের পক্ষ থেকে পৃথক তদন্ত কমিটি করা হয়েছে।