image

টাকা না দেওয়ায় রোগীর বাবাকে মারধোর করে সিকিউরিটি গার্ড

image

চট্টগ্রাম আগ্রাবাদ মা ও শিশু হাসপাতালে প্রবেশের সময় সিকিউরিটি গার্ডকে টাকা না দেওয়ায় রোগীর বাবা ও চাচাকে বেধম মারধোর করে সেখানে কর্মরত জাহানঙ্গীর ও শাকিল নামের দুই সিকিউরিটি গার্ড।

সোমবার (১৮ অক্টোবর) রাত ৮ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।এ সময় তাদের সেই হাসপাতালেই ভর্তি করা হয়।

আহত ব্যক্তিদের নাম মোঃ মেজবাহ উদ্দীন (২৭) ও তার বড় ভাই মোঃ বোরহান উদ্দীন (৩০)।তারা বাংলাদেশ রেলওয়েতে চাকরী করেন।

                                                                       

জানা যায় আহত মেজবাহ উদ্দীনের মেয়ে ঐ হাসপাতালে ভর্তি ছিল ।সোমবার রাতে মেজবাহ উদ্দীনের স্ত্রী তাকে ফোন দিলে তিনি তার ভাইকে নিয়ে হাসপাতালে প্রবেশের সময় সিকিউরটি গার্ড তাদের থেকে টাকা খুঁজে। এ নিয়ে তাদের মধ্যে বাকদন্দিতার সৃষ্টি হয়। এক পর্যায়ে গার্ড দু জন তাদের গায়ে হাত তুলে এবং বহিরাগত কিছু লোক ডেকে দেনে তাদের মেয়ে জখম করে।

ঘটনাস্থলে তৎক্ষণাৎ পুলিশ এসে পরিস্থিতি সামাল দেয়।এবং আহত দুই ব্যক্তিকে দ্রুত চিকিৎসার জন্য সেই হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তবে এ ঘটনায় পুলিশ সেই দুই গার্ডকে আটক করলেও পরবর্তীতে তাদের ছেড়ে দেয়। 

এ বিষয়ে আহতের ছোট বোন আসমা আক্তার বলেন, আমার ভাইয়ের মেয়ে এ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে।রাতে আমার ভাবী আমার ভাইকে কিছু ঔষধ আনার জন্য ফোন দিলে আমার দুই ভাই হাসপাতালে প্রবেশের সময় দুজন গার্ড তাদের বাঁধা দেয় ।কারণ জানতে চাইলে তারা চাঁদা দাবি করে।চাঁদা দিতে অসম্মতি জানালে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে আমার দুই ভাইকে লাঠি, ইট দিয়ে মেরে জখম করে এবং বহিরাগত কিছু ছেলে এসে তাদের বেধম মারধোর করে।

এ বিষয়ে সেখানে উপস্থিত থাকা ডবলমুরিং থানার এস আই জাহাঙ্গীর বলেন, আমরা তাদের আটক করে হাসপাতালের জিম্মায় দিয়েছি।বিষয়টি নিয়ে এখনো কোনো লিখিত অভিযোগ হয়নি, অভিযোগ হলে আমরা আইনানুগ ব্যবস্থা নিব।

বিষয়টি নিয়ে মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) হাসপাতালের পরিচালকের সাথে কথা বললে তিনি দৈনিক আলোকিত দেশকে বলেন, বিষয়টি খুবই দুঃখজন।আমরা দ্রুত এর ব্যবস্থা নিচ্ছি, যাতে এ ধরনের ঘটনা পুনরাবৃত্তি না ঘটে।

তবে বিষয়টি নিয়ে আহতের আত্নীয়র সাথে কথা বললে তারা বলেন, এখনো কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।