image

গ্রিন সিটি ক্লিন সিটি বাস্তবায়নে মাননীয় মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন এর বিকল্প নাই - এস এম আজিজ

image

 

জনাব এস এম আজিজ তিনি রোটারিয়ান এস এম আজিজ নামে পরিচিত। তাছাড়া যুক্ত আছেন, সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন (চট্টগ্রাম  বিভাগ) এর বিশেষ প্রতিনিধি, ভাইস চেয়ারম্যান মুক্তিযুদ্ধ বাস্তুহারা কল্যান পরিষদ,প্রধান উপদেষ্টা সাউথ এশিয়ান ভয়েস ফর চিলড্রেন, চেয়ারম্যান ম্যাচ এন্ড ফার্ম স্টিক ফ্যাক্টরি, পরিচালক এ এফ ইন্টারন্যাশনাল, উপদেষ্টা --  চট্টগ্রাম মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম, বাংলাদেশ সাংবাদিক মানবাধিকার সোসাইটির ,সিটি স্কুল

 

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন মেয়র নির্বাচন সামনে। এই নির্বাচন এর সম্ভাব্য বিভিন্ন দিক নিয়ে দৈনিক আলোকিত দেশ পএিকার একান্ত সাক্ষাৎকারে কথাগুলো বলেন, সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন (চট্টগ্রাম বিভাগ) এর বিশেষ প্রতিনিধি ; জনাব এস এম আজিজ।

 

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন মেয়র নির্বাচনে সম্ভাব্য মেয়র থেকে কি কি বিষয় প্রত্যাশা করেন?

উত্তর : বর্তমান যিনি মেয়র আছেন জনাব আ জ ম নাছির সাহেব আমি মনে করি উনি বর্তমান এর জন্য যথেষ্ট। যদি উনি আবার নির্বাচিত হন চট্টগ্রাম এর সমস্যাগুলো আরো দ্রুত সমাধান হবে। যেহেতু উনি ৫ বছর ধরে দায়িত্বে আছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা তার যে ভিশন ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার, তিনি এই ভিশনের কার্যক্রমগুলো বিভিন্ন বিভাগে বন্টন করে দিয়েছেন এবং তিনি নিজেই মনিটরিং করছেন। সেইসুবাদে আমাদের মেয়র জনাব আ জ ম নাসির অত্যান্ত নিষ্টা এবং পরিশ্রমের সাথে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন।উনি আমার খুব পছন্দের একজন ব্যাক্তি শুধু আমার নয় চট্টগ্রাম এর বেশিরভাগ মানুষ উনাকে পছন্দ করেন। উনার যে দিকটা সবচেয়ে ভাল সেটা হচ্ছে উনি অাধুনিক চট্টগ্রাম গঠনে অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। উনি ব্যাক্তিগত ভাবে ইবাদত করেন কিন্তু উনি ক্লিন সিটি গ্রিন সিটি বাস্তবায়নে যে কাজ গুলো করে যাচ্ছেন সেটাও একটা ইবাদত। আমি মনে করি জনাব আ জ ম নাছির সাহেব কে যদি আবার নির্বাচিত করা হয় অথবা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যদি মনে করেন উনি যোগ্য এবং পার্টি থেকে যদি মনোনীত করেন তাহলে আমি মনে করি আগামী ৫ বছরের মধ্যে জনাব আ জ ম নাসির তার ডিজিটাল চট্টগ্রাম বাস্তবায়ন করার স্বপ্ন পুরন করতে পারবেন। আমি বিশ্বাস করি উনি ক্লিন সিটি গ্রিন সিটি র স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে পারবেন।

জলাবদ্ধতা নিরসনে কি কি পদক্ষেপ নিলে এই সমস্যা সমাধান হতে পারে?

আপনারা ইতিমধ্যে জানেন যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বিশাল অঙ্কের একটা বাজেট অনুমোদন দিয়েছেন এবং সেনাবাহিনী কে দায়িত্ব দিয়েছেন কাজ গুলো সুষ্টু ভাবে সমাধান করার জন্য। কাজের ধারাবাহিকতা থাকলে একটা কাজ সুষ্টভাবে সমাধান করা যায়।চলমান একটা কাজ করতে গিয়ে যদি বিকল্প কেউ দায়িত্ব নেন তাহলে তাকে নতুনভাবে পরিকল্পনা করতে হবে এতে কাজগগুলো পিছিয়ে পড়ে যায়।এখন যেহেতু আ জ ম নাসির সাহেব তার শ্রম, মেধা, বুদ্ধি দিয়ে চট্টগ্রামকে অাধুনিক নগরে রুপান্তর করার প্রচেষ্টা সেটা বাধাগ্রস্ত হতে পারে। কাজের যদি ধারাবাহিকতা থাকে তাহলে কাজগুলো সুন্দরভাবে সমাধান হবে এবং বাংলাদেশ আরো এগিয়ে যাবে।আপনারা দেখেছেন যে, বাংলাদেশ এখন এশিয়া মহাদেশে রোল মডেল। এই অর্জনের পিছনে ভূমিকা রেখেছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি দায়িত্ব গুলো যোগ্য ব্যাক্তিদের মধ্যে বন্টন করে দিয়েছেন এবং সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টাই পারে ডিজিটাল বাংলাদেশ এর স্বপ্ন পূরন করতে।